বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ : নীলফামারী জেলা পর্যায়ের ফাইনাল অনুষ্ঠিত

উপজেলা প্রতিনিধি, ডোমার

উপজেলা প্রতিনিধি, ডোমার

৪ জুন, ২০২২, ৩ সপ্তাহ আগে

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ : নীলফামারী জেলা পর্যায়ের ফাইনাল অনুষ্ঠিত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট (বালক ও বালিকা, অনূর্ধ্ব-১৭) এর নীলফামারী জেলা পর্যায়ের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বালক ইভেন্টে সৈয়দপুর ও বালিকা ইভেন্টে নীলফামারী সদর জেলা চাম্পিয়ন হয়েছে।

শনিবার (৪ঠা জুন) বিকাল ৩টায় নীলফামারী সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে টুর্নামেন্টের বালক ইভেন্টের ফাইনালে পরস্পরের মুখোমুখি হয় ডোমার উপজেলা ও সৈয়দপুর উপজেলা। এতে ডোমার উপজেলাকে ০-৩ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে শিরোপা নিজেদের করে নিল সৈয়দপুর।

দিনের অপর ম্যাচে বিকাল ৫টায় একই ভেন্যুতে বালিকা ইভেন্টের ফাইনালে মাঠে নামে ডোমার উপজেলা ও নীলফামারী সদর উপজেলা। এতে ডোমার উপজেলাকে ০-২ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে জেলা পর্যায়ের চাম্পিয়ন হয়েছে নীলফামারী সদর উপজেলার মেয়েরা।

খেলা শেষে নীলফামারী জেলা প্রশাসন ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন—সাবেক সংস্কৃতি মন্ত্রী ও নীলফামারী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান নূর এমপি। এতে সভাপতিত্ব করেন—নীলফামারীর জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন—নীলফামারী জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান বিপিএম, পিপিএম, নীলফামারী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন নাহার, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিদ মাহমুদ প্রমূখ।

পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও সাংসদ আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ক্রীড়া একটি মানবদেহের জন্য অনেক উপকারী। মাদক থেকে দূরে রাখতে ক্রীড়ার মাধ্যমে তরুণ সমাজকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হবে। বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সহধর্মিণী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলা ৪ দলের জন্যই শুভকামনা। এছাড়া চাম্পিয়ন সৈয়দপুর ও নীলফামারী সদর উপজেলাকে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানাই।

নীলফামারী জেলা ফুটবল রেফারীজ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ভূবন মোহন তরফদার জানান, আজকের দুই ফাইনাল ম্যাচে বালক ও বালিকা ইভেন্টে রেফারী হিসেবে খেলা পরিচালনা করেন যথাক্রমে গোবিন্দ রায়, রওশন কবির, টিআই সামি, অমল রায় ও লেবু খান, রুবেল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম, মিষ্টি আক্তার।

পত্রিকা একাত্তর/রিশাদ