কৃষক হয়রানি হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর

১৩ মে, ২০২২, ৪ দিন আগে

কৃষক হয়রানি হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে
রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ  আব্দুল মান্নান কৃষক হয়রানি হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুসিয়ারি দিয়ে বলেন, প্রধান  মন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য প্রযুক্তির এই বিশ্বায়ানে কৃষকদের দারপ্রান্তে পৌছে গেছে  রাকাব।
কৃষক ও কৃষি উন্নয়নে সরকার কৃষি ঋণ, প্রনোদনা ঋণ ও ৪ শতাংশ সুদে পূর্ণ  অর্থায়ন স্কিমের আওতায় কৃষকদের ঋণ দেয়া হচ্ছে। এসব ঋণ বিতরনে হয়রানি মুক্তভাবে  ঋণ দেয়ার জন্য তাগাদা দেন। তিনি ৪% সুদে পূর্ণ অর্থায়ন স্কিমের আওতায় ৩৭  কোটি টাকা ঋণের লক্ষ্যমাত্রা উল্লেখ করে বলেন, ইতোমধ্যেই ১ হাজার ৮‘শ ৭০ জন  কৃষককে ঋণ দেয়া হয়েছে।
এছাড়াও ৫ কোটি টাকা এবং কৃষি ও সিএমএসএমইর  অন্যান্য খাতে এ বছর ৩‘শ কোটি টাকার ঋণ বিতরন করেন রাকাব। তিনি জাতির পিতা  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার  নির্দেশনায় তৃণমূল পর্যায় গ্রাহকদের দ্বারপ্রান্তে অনলাইনের মাধ্যমে ঋণ পৌছে  যাচ্ছে। সুতরাং কৃষি ক্ষেত্রে উন্নয়নে আর কোন বাঁধা নেই।
তিনি আরজিএস এ  চালান, ইন্টারনেট ব্যাংকিং ও মোবাইল আ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছেঋণ পৌছে  দেয়ার তাগাদা দিয়ে বলেন, শুধু কৃষি ও কৃষকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়, সব খাতেই ঋণ  দিচ্ছে রাকাব। ১৩ মে শুক্রবার দিনাজপুর বালুবাড়ীস্থ এমবিএসকে হলরুমে রাজশাহী  কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, দিনাজপুর (উত্তর ও দক্ষিণ) জোনের আয়োজনে ব্যাংকের মুনাফা  বৃদ্ধিসহ শাখা ব্যবস্থাপকগণের পারফরমেন্স মূল্যায়ন সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে  ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ আব্দুল মান্নান এসব কথা বলেন।
রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন  ব্যাংক রংপুর বিভাগের মহা-ব্যবস্থাপক মোঃ বাবর আলী সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য  রাখেন দিনাজপুর দক্ষিণ জোনাল ব্যবস্থাপক মোঃ জাফর আলী মল্লিক, উত্তরের জোনাল  ব্যবস্থাপক মোঃ সাখাওয়াত হোসন, স্টাফ অফিসার জিয়াউল হক প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে ৩৭ টি  শাখার ব্যবস্থাপক ও অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন  ব্যাংকের দেশে ৩৮৩ টি শাখা রয়েছে উল্লেখ করে পারফরমেন্স মূল্যায়ন সভায় বলা হয় ১৯৮৭  সালের ১৫ই মার্চ এ ব্যাংকের জন্ম হয়। ৩৫ বছর ধরে পঙ্গুত্ব অবস্থায় চলছিল।
শুধু লোকসান  হচ্ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে এ ব্যাংকের  স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনার সাথে সাথে কৃষি ও কৃষকের উন্নয়ন এখন বাংলাদেশের মডেল  হয়ে দাড়িয়েছে। তাই দেশে আর মঙ্গা শব্দটি নেই।
পত্রিকা একাত্তর / মোঃ আরমান হোসেন