patrika71
ঢাকামঙ্গলবার - ১৮ অক্টোবর ২০২২
  1. অনুষ্ঠান
  2. অনুসন্ধানী
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আবহাওয়া
  7. ইসলাম
  8. কবিতা
  9. কৃষি
  10. ক্যাম্পাস
  11. খেলাধুলা
  12. জবস
  13. জাতীয়
  14. ট্যুরিজম
  15. প্রজন্ম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

৩৬ বছরে পা রাখলেন সাজান পাদামসি

বিনোদন ডেস্ক
অক্টোবর ১৮, ২০২২ ১০:৫৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সাজান পাদামসি একজন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ফরাসি চলচ্চিত্র ও মঞ্চ অভিনেত্রী। এছাড়াও তিনি মডেল হিসেবে কাজ করেন। পাদামসি অভিনেতা আলেক পাদামসি ও শ্যারন প্রভাকরের কন্যা। ২০০৯ সালে মুক্তি পাওয়া রকেট সিং : সেলসম্যান অফ দি ইয়ার ছবির মাধ্যমে তার বলিউডে অভিষেক হয়।

এই ছবিতে কাজ করার পরে তিনি তামিল ও তেলুগু ভাষায় দুইটি ছবিতে কাজ করেন যেগুলো সমালোচকদের দ্বারা প্রশংসিত হয়। পরবর্তীতে তিনি মাধুর বানদারকার পরিচালিত দিল তো বাচ্চা হ্যায় জি ছবিতে বিশিষ্ট ভূমিকায় অভিনয় করেন। আজ এই অভিনেত্রী ৩৬ তম জন্মদিন ১৮ অক্টোবর ১৯৮৭ সালে প্যারিস, ফ্রান্সে জন্মগ্রহণ করেন। পাদামসি কিছু মঞ্চ নাতকে অভিনয় করেন যার মধ্যে আনস্পোকেন ডায়ালগ নামে তার বাবার রচিত নাটকও ছিল।

পরবর্তীতে তিনি কিছু জাতীয় বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেন এবং এর পাশাপাশি তিনি হিন্দি ছবিতে কাজ করার চেষ্টা করছিলেন। বিবেক ভাসইয়ানির ছবিতে কাজ করার সুযোগ না পাওয়ার পর তিনি যশ রাজ স্টুডিও নির্মিত রকেট সিং : সেলসম্যান অফ দি ইয়ার ছবিতে রণবীর কাপুরের সাথে অভিনয় এর জন্য মনোনীত হন।সাজান ছবিতে সেরেনা নামে একটি ভূমিকায় অভিনয় করেন। এখানে তিনি ক্রেতা হিসেবে অভিনয় করেন।

ছবিতে যদিও তিনি প্রধান একটি চরিত্রে অভিনয় করেন তবুও সমালোচকরা দাবি করেন তিনি পর্দায় খুব কম সময় অভিনয় করার সুযোগ পেয়েছিলেন।ছবিটি ইতিবাচকভাবে সমালোচিত হয়। কিন্তু কম প্রচারনার কারণে এটি বেশি ব্যবসাসফল হতে পারেনি। তার পরবর্তী দুইটি ছবি একই দিনে মুক্তি পায় যেগুলোর একটি ছিল তামিল ভাষায় ও আরেকটি ছিল তেলুগু ভাষায়। কানিমোজি নামক ছবিতে তিনি অনু নামে একটি মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেন যার কাছে জয় দ্বারা অভিনীত অপর প্রধান চরিত্র তার অনুভূতি প্রকাশ করতে দুর্বলতা প্রকাশ করে।

ছবির পরিচালক তার অনলাইন পোর্টফলিয়ো দেখে তার বাবার সম্মতি নিয়ে তাকে ছবিতে অভিনয়ের জন্য মনোনীত করেন। ছবিটি মুক্তির পর সমালোচকরা মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।সমালোচকদের মতে তাকে সুন্দর লাগছিল ও ভালো ছবিও ছিল কিন্তু পুতুল হিসেবে না থেকে ছবিতে তার আরও শক্তিশালী অভিব্যক্তি ফুটিয়ে তুলতে পারতেন।তবে তার অরেঞ্জ নামক তেলুগু ছবিটি ইতিবাচক সাড়া পায় এবং তার অভিনয় সমালোচকদের দ্বারা প্রশংসিত হয়।ছবিতে তিনি রুবা নামে একটি চরিত্রে অভিনয় করেন ছবির একটি গানে ব্যবহার করা হয়।

অরেঞ্জ ছবিতে তাকে রাম চরন তেজা অভিনীত নায়কের চরিত্রের প্রেমিকা হিসেবে ফ্ল্যাশব্যাক সিকুয়েন্সে দেখা যায়। এনডিটিভি থেকে একজন সমালোচক তার অভিনয় সম্পর্কে বলেন যে পাদামসি দক্ষিণের ছবিতে অভিনয় করার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত।অপর দুইটি সমালোচক সিফি ও দি হিন্দু তার অভিনয়ের বেশ প্রশংসা করেন। ২০১১ সালে সাজান অভিনীত প্রথম মুক্তি পাওয়া ছবি ছিল মাধুর বানদারকারের পরিচালিত রোমান্টিক হাস্যপ্রদ ছবি দিল তো বাচ্চা হ্যায় জি।

ছবিটিতে তিনি জুন পিন্টো নামক একজন অফিস ইন্টার্নি হিসেবে অভিনয় করেন যেখানে তার সাথে তালাকপ্রাপ্ত অপর একটি চরিত্রে অভিনয় করেন অজয় দেবগণ। ছবিতে তার পাশাপাশি আরও অভিনয় করেন ইমরান হাশমি, ওমি ভাইদ্দ্যা, শ্রুতি হাসান ও আর্দালি দাস।সহকর্মীদের সাথে পাদামসি এই ছবির অনেক প্রচারণায় অংশগ্রহণ করেন। ছবিটি ব্যবসাসফল হয় এবং সাজানের অভিনয় সম্পর্কে সমালোচকরা মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

কেউ তার অভিনয় সম্পর্কে বলেন, তিনি ছবিতে সঠিক চরিত্রে অভিনয় করেছেন। অপরদিকে কেউ কেউ বলেন, এটি তার সবচেয়ে বাজে অভিনয়। সাজানের সবচেয়ে সাম্প্রতিক কাজ হল সাজিদ খান পরিচালিত হাউজফুল ২ ছবিতে অক্ষয় কুমার, জন আব্রাহাম, জেরিন খান, অসিন ও জ্যাকুইলিন ফারনান্দেজ সহ পাঁচমিশালী অভিনেতাদের সাথে অভিনয় করেন।

ছবিতে তার ভূমিকা শুধুই চোখের আকর্ষণ হিসেবে অনেকে বলেন।কিন্তু হাউজফুল ২ ছবিটি ইতিহাসের দশম ছবি যেটা ১ বিলিয়ন রুপীরও ($১৬ মিলিয়ন) বেশি আয় করে। ছবিটি ২০১২ সালে সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক সফলটা পায়।

পত্রিকা একাত্তর / মাসুূদ পারভেজ