patrika71
ঢাকাশনিবার - ২৯ অক্টোবর ২০২২
  1. অনুষ্ঠান
  2. অনুসন্ধানী
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আবহাওয়া
  7. ইসলাম
  8. কবিতা
  9. কৃষি
  10. ক্যাম্পাস
  11. খেলাধুলা
  12. জবস
  13. জাতীয়
  14. ট্যুরিজম
  15. প্রজন্ম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সরিষাবাড়ীতে সাবেক স্বামীসহ দলবদ্ধভাবে ধর্ষনে ডির্ফোসী স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

উপজেলা প্রতিনিধি, সরিষাবাড়ী
অক্টোবর ২৯, ২০২২ ৮:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ীতে সোনিয়া আক্তার (১৬) নামে এক ডির্ফোসী স্ত্রীকে সাবেক স্বামীসহ দলবদ্ধ ধর্ষনে গৃহবধুকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ নিহতের পরিবারের। ঘটনাটি সরিষাবাড়ী উপজেলার দৌলতপুর গ্রামে ঘটেছে।এ ঘটনায় ডির্ফোসীর স্ত্রীর সাবেক স্বামী মাহিম(১৯)সহ দুই বন্ধু পল্লব হাসান(১৮),সাকিব হোসেন(১৬)কে আটক করেছে সরিষাবাড়ী থানা পুলিশ।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ এবং স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, সরিষাবাড়ী উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের গেন্দার পাড়া গ্রামের ফিরোজ মিয়ার মেয়ে সোনিয়া আক্তার (১৬) তার নানাবাড়ী একই উপজেলার আওনা ইউনিয়নের গোয়ালবাথান গ্রামের বাবলু মিয়ার বাড়ী থেকে বাটিকামারী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৯ম শ্রেনীতে পড়াশুনা করে আসছিল। ওই স্কুলে আসা-যাওয়ার এক পর্যায়ে উপজেলার একই ইউনিয়নের কুলপাল গ্রামের রিপন মিয়ার ছেলে মাহিম(১৯) এর সাথে প্রেম সম্পর্কে জডিয়ে দু-জনের পরিবারের অজান্তে ৭ মাস পুর্বে বিয়ে হয়।

বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই বিভিন্ন সময় সোনিয়ার পিতার কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা দাবী করে স্বামী মাহিম। স্বামীর দাবীকৃত যৌতুকের টাকা এনে দিতে না পারায় সোনিয়াকে মারধর করে পাষন্ড স্বামী। নিরুপায় হয়ে স্বামীর আবদার মেটাতে সোনিয়া’র নানা বাবলু মিয়ার বাড়ীতে থাকা ৪ ভরী ওজনের স্বর্ণের গহনা ও ১৭ হাজার টাকা গোপনে নিয়ে মাহিম কে দেয়।

এ বিষয়টি জানা জানি হলে পারিবারীক বৈঠকে টাকা ও স্বর্ণের গহনা ফেরত দিতে বলায় মাহিম লোক লজ্জায় সোনিয়াকে সম্প্রতি ডিফোর্স দেয়। এর পরেও মাহিম তার বন্ধুদের মাধ্যমে সোনিয়ার সাথে সম্পর্ক অব্যাহত রাখার এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার মাহিম সহ তার বন্ধু পল্লবের বাসায় নিয়ে দলবদ্ধভাবে ধর্ষন করে। একর্পায়ে সোনিয়া অজ্ঞান হয়ে পড়লে তার মুখে বিষ ডেলে মাহিমের তিন বন্ধ প্রথমে সরিষাবাড়ী হাসপাতালে রাত আনুমানিক ১১টার দিকে নিয়ে যায়। সোনিয়ার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে পাঠালে সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে

মৃত ঘোষনা করেন। পরে সোনিয়ার মৃত দেহ রেখে তিন বন্ধু পালিয়ে যায়। পরে আজ শনিবার সোনিয়ার পরিবার পরিজন সোনিয়ার লাশ জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী সার্জন ও বিভাগীয় প্রধান ডা: হারুন অর রশীদ এর মাধ্যমে লাশের ময়না তদন্ত শেষে সন্ধা ৬ টায় গেন্দার পাড়া গ্রামের পিতৃালয়ে দাফন সম্পন্ন করা হয়। এ নিয়ে এলাকায় শোকের মাতম চলছে।

এ ব্যাপারে নিহত সোনিয়ার পিতা ফিরোজ মিয়া জানান, যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে বিভিন্ন সময় নির্যাতনের পর ডিফোস দেয়ার পরও আমার মেয়ে সোনিয়া আক্তারকে ফুসলিয়ে নিয়ে সাবেক স্বামী মাহিম সহ তার বন্ধুদের নিয়ে বন্ধু পল্লবের বাসায় দলবদ্ধ ধর্ষন করে মুখে বিষ দিয়ে হত্যা করেছে। আমি এর বিচার চেয়ে মামলা দায়ের করবো। জানতে চাইলে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ মহব্বত কবীর জানান, ডির্ফোসী স্ত্রী সোনিয়াকে হত্যার ঘটনায় জডিত সন্দেহে সাবেক স্বামী মাহিম সহ ৩ জন কে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

পত্রিকা একাত্তর / সিহাব উদ্দিন