patrika71 Logo
ঢাকাবুধবার , ১১ আগস্ট ২০২১
  1. অনুষ্ঠান
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. আবহাওয়া
  8. ইভেন্ট
  9. ইসলাম
  10. কবিতা
  11. করোনাভাইরাস
  12. কৃষি
  13. খেলাধুলা
  14. চাকরী
  15. জাতীয়
আজকের সর্বশেষ সবখবর

এইচএসসির ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা আদায়

পত্রিকা একাত্তর ডেস্ক
আগস্ট ১১, ২০২১ ৩:২৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ad

নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। পলাশ থানা সেন্ট্রাল কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ। প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষ শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশনা উপেক্ষা করে নির্ধারিত বোর্ড ফি ও মাসিক বেতনের সঙ্গে আদায় করছে অতিরিক্ত ১৫ থেকে ১৬ হাজার টাকা। এসব অতিরিক্ত টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে বিপাকে পড়েছেন ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

জানা গেছে, করোনার কারণে দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর এবার ২০২১ সালের শিক্ষার্থীদের এইচএসসি পরীক্ষার জন্য শুধু বোর্ড নির্ধারিত পরীক্ষার ফি ও সংশ্নিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বকেয়া বেতন ছাড়া অন্য কোনো অর্থ আদায় করতে পারবে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এমন নির্দেশনা জারি করে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এই নির্দেশনা অমান্য করলে সংশ্নিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ফরম পূরণ প্যানেল বাতিলসহ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়। কিন্তু এ নির্দেশনাকে উপেক্ষা করে অতিরিক্ত টাকা আদায় করছে বলে পলাশ থানা সেন্ট্রাল কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।

প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা বলছেন, এইচএসসির ফরম পূরণে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে ৩৮ হাজার টাকা, যা নির্ধারিত বোর্ড ফি ও ২৪ মাসের বেতনের চেয়ে ১৫ থেকে ১৬ হাজার টাকা বেশি। এসব টাকা কোন খাতে নেওয়া হচ্ছে, তাও সঠিকভাবে জানাচ্ছে না কলেজ কর্তৃপক্ষ।

পলাশ থানা সেন্ট্রাল কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী তাকবির শিকদার জানান, ফরম পূরণের জন্য তার কাছে কলেজ থেকে ৩৮ হাজার টাকা চাওয়া হয়। এরই মধ্যে তিনি ১৭ হাজার টাকা পরিশোধ করেছেন। বাকি ২১ হাজার টাকা পরিশোধের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ তাকে চাপ দিচ্ছে।

একই অভিযোগ করেন ওই কলেজের শারমিন আক্তার, ঊর্মি আক্তার, তানিয়া আক্তারসহ একাধিক শিক্ষার্থী।

অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার বিষয়টি জানতে চাইলে পলাশ থানা সেন্ট্রাল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আমির হোসেন গাজী বলেন, কলেজের একজন শিক্ষার্থীর দুই বছরের সব খরচসহ ৩৮ হাজার টাকা পড়ে। সেই হিসাবেই টাকা আদায় করা হচ্ছে।

পলাশ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিলন কৃষ্ণ হালদার জানান, সরকারি নিয়মের বাইরে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের কোনো সুযোগ নেই। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সূত্রঃ সমকাল

ad