patrika71
ঢাকাসোমবার - ২১ নভেম্বর ২০২২
  1. অনুষ্ঠান
  2. অনুসন্ধানী
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আবহাওয়া
  7. ইসলাম
  8. কবিতা
  9. কৃষি
  10. ক্যাম্পাস
  11. খেলাধুলা
  12. জবস
  13. জাতীয়
  14. ট্যুরিজম
  15. প্রজন্ম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

‘কুয়াকাটা মাল্টিমিডিয়া’র কন্টেন্ট ক্রিয়েটর সাদ্দাম মাল গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিনিধি
নভেম্বর ২১, ২০২২ ১১:৪০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

পটুয়াখালী কুয়াকাটার জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল ‘কুয়াকাটা মাল্টিমিডিয়া’র কন্টেন্ট ক্রিয়েটর সাদ্দাম মালকে এক ভক্তের অভিযোগে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এতে ভক্তদের মাঝে দেখা দিয়েছে ক্ষোভ। বিভিন্ন জায়গা থেকে এ গ্রেফতারের প্রতিবাদ সহ তীব্র নিন্দা জানানো হচ্ছে।

সোমবার (২১ নভেম্বর) ভোর ৫ টার দিকে কুয়াকাটা হোটেল বনানী প্যালেস থেকে সাদ্দাম মালের এক বন্ধু সুমন সিকদার সহ দু’জনকে গ্রেফতার করে মহিপুর থানা পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, রোববার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বরগুনা থেকে কুয়াকাটায় বেড়াতে আসে সাদিক ও তার পরিবার। পরে ফ্রাইপট্টির মধ্যে মাছফ্রাই খাওয়ার জন্য অবস্থান করলে সাদ্দাম মালসহ কয়েকজন একত্রিত হয়ে তাদেরকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। সাদিক প্রতিবাদ করলে ক্ষিপ্ত হয়ে তাদেরকে এলোপাথাড়ি কিল ঘুষি মেরে ফুলা জখম করে। পরে সাদিক মহিপুর থানায় আইনের আশ্রয় নেন বলে মামলায় বলা হয়।

এব্যাপারে কুয়াকাটা মাল্টিমিডিয়া ইউটিউব চ্যানেলের পরিচালক শুভ কবির বলেন, রোববার রাতে সাদ্দাম মালকে দেখে সেলফি তোলার জন্য বরগুনা থেকে আগত ৬-৭ জনের একটি গ্রুপ এগিয়ে আসে, একই সময় তালতলী থেকে আগত আরো দু’জন ভক্ত সেলফি তুলতে চায়। তখন এই সেলফি তুলতে আসা দুই গ্রুপের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে সাদ্দাম তাদের মিমাংসা করতে এগিয়ে আসে। এক পর্যায়ে বরগুনা থেকে আসা সাদিকুর রহমান নামের এক ভক্ত তার সাথে থাকা লোকজন নিয়ে একটি গন্ডগোল তৈরি করে। পরে অভিনেতা সাদ্দাম মালকে উদ্দেশ্যে করে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করলে সাদ্দাম মাল প্রতিবাদ করে। এক পর্যায়ে দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি হয়।

তিনি আরো বলেন, কুয়াকাটা মাল্টিমিডিয়ার জনপ্রিয়তাকে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য পরিকল্পিতভাবে আজকের এই ঘটনা ঘটিয়েছে তারা। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই এবং তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

মহিপুর থানার ওসি খোন্দকার মোঃ আবুল খায়ের বলেন, বরগুনা থেকে আসা এক ব্যক্তির অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা সাদ্দাম মাল সহ দু’জনকে আটক করেছি। পরে আদালতে প্রেরণ করেছি।

পত্রিকা একাত্তর/ ওহীদুল ইসলাম