patrika71 Logo
ঢাকামঙ্গলবার , ১৫ জুন ২০২১
  1. অনুষ্ঠান
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. কবিতা
  10. করোনাভাইরাস
  11. কৃষি
  12. খেলাধুলা
  13. চাকরী
  14. জাতীয়
  15. টেকনোলজি
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ছেলের হাতে পিতা হত্যার আসামি গ্রেফতার

পত্রিকা একাত্তর ডেক্স
জুন ১৫, ২০২১ ৩:১২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

মোঃ রাশেদুল ইসলাম : মিঠাপুকুরে পুত্র কর্তৃক চাঞ্চল্যকর পিতা হত্যা মামলার একমাত্র ও প্রধান আসামী জিবন কুজুর গ্রেফতার। হত্যা কাজে ব্যবহৃত কুড়াল উদ্ধার।

গত ইং ১১.০৬.২১ ইং তারিখ রোজ শুক্রবার দুপুর ১২.৩০ ঘটিকায় রংপুরের মিঠাপুকুরের হযরতপুর ইউনিয়ন এর রামেশ্বরপাড়া গ্রামের ঘুমন্ত বাবা মোংলা কুজুর (৬০) কে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে তার একমাত্র ছেলে জীবন কুজুর (৩৮)। ঘটনার দিন দুপুরে নিজ শয়নকক্ষে ঘুমিয়ে ছিলেন মোংলা কুজুর। এ সময় তার একমাত্র ছেলে জীবন কুজুর ঘরে ঢুকে তার বাবার মাথায় কুড়াল দিয়ে কোপ মেরে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

এতে মাথার মগজ বের হয়ে ঘটনাস্থলেই মোংলা কুজুর মারা যান। উক্ত ঘটনায় নিহতের চাচাতো ভাই আতুল কুজুর মাস্টার বাদী হয়ে জিবন কুজুর এর বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মিঠাপুকুর থানার মামলা নং-২৮, তাং-১১.০৬.২১ ইং ধারা-৩০২ দন্ড বিধি।উক্ত ঘটনা এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় উক্ত ঘটনা ব্যাপক গুরুত্ব সহকারে প্রচার করা হয়। এলাকার ছোট- বড় সবার মুখে একই কথা, কেন একমাত্র ছেলে তার বাবাকে নির্মমভাবে হত্যা করল? উক্ত হত্যাকান্ডের পর থেকে হত্যাকারী জিবন কুজুর (৩৮) পলাতক ছিল।

মিঠাপুকুর থানা পুলিশ হাল ছেড়ে দেয় নাই। ঘটনার পর থেকে জিবন কুজুরকে ধরতে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে। অবশেষে গতকাল ইং ১৪.০৬.২১ তারিখ রাত্রি ১১.৩০ ঘটিকায় মিঠাপুকুর থানা পুলিশের একটি চৌকশ দল শঠিবাড়ি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। এরপর তার দেয়া তথ্যমতে হত্যাকাজে ব্যবহৃত কুড়ালটি তার বসতবাড়ি থেকে উদ্ধারপুর্বক জব্দ করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, জিবন কুজুর একজন দিন মজুর। সে ইট ভাটায় কাজ করত। সে ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত। তার দুইটি বাচ্চা আছে।

তার মা ৫/৬ বছর আগে মারা গেছে। বাবা, দুই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে তার সংসার। জনশ্রুতি আছে যে, গত দুই বছর আগে জিবন কুজুরের মানসিক সমস্যা হয়। এরপর বিভিন্ন জায়গায় তার চিকিৎসা করানো হয়। সে বর্তমানে সুস্থ ছিল। ঘটনার দিন সে হঠাৎ তার বাবার ঘরে ঢুকে সে কুড়াল দিয়ে তার বাবার মাথায় কোপ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়। সে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে এবং সে একাই উক্ত হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে জানায়। গ্রেফতারকৃত আসামীকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।