patrika71 Logo
ঢাকামঙ্গলবার , ১৫ জুন ২০২১
  1. অনুষ্ঠান
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. কবিতা
  10. করোনাভাইরাস
  11. কৃষি
  12. খেলাধুলা
  13. চাকরী
  14. জাতীয়
  15. টেকনোলজি
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আজিজুর রহমানের মৃতদেহের মাথা ও পা উদ্ধার

পত্রিকা একাত্তর ডেক্স
জুন ১৫, ২০২১ ৯:৫১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

গত ৬ জুন সকালে মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের কালুকান্দি গ্রামের মাগুরা টু মহম্মদপুর মেইন রাস্তার ধারে একটি পরিত্যাক্ত পুকুরে বস্তাবন্দী অবস্থায় আজিজুর নামক এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরে বস্তার মুখ খুলে হাত বাঁধা অবস্থায় মৃত দেহের বডি পায় পুলিশ। কিছু সময় খোজা খুজির পরে মৃত দেহের বিছিন্ন একটি পা সড়কের পাশে পাওয়া যায়। কিন্তু লাশের মাথা ও আরেকটি পা তখন উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

এই ঘটনার জের ধরেই পুলিশের কঠোর তদন্তের মাধ্যমে আসল ঘটনা উদ্ধার করা হয়।

মাগুরা শহর থেকে প্রায় ১৩ কি.মি দূরে সদরের চাউলিয়া ইউনিয়নের ঘোড়া নাস দক্ষিণ পাড়া মাসুদ বিক্সসের কাছের একটি পাট ক্ষেতের পাশে রাস্তার কালভার্টের নিচ থেকে খন্ডিত পা ও মাথা উদ্ধার করা হয়।

১৪ জুন সোমবার সন্ধ্যায় র‌্যাবের এক অভিযানে মৃতদেহের মাথা ও পা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার অভিযানে অংশগ্রহন করেন, র‌্যাব, পুলিশ ও দমকল বাহিনীর উদ্ধার কর্মীরা। আটককৃত আশরাফ আলীর (৩৪) এর স্বীকারউক্তিতে এ অভিযান চালানো হয়।

এ বিষয়ে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন-৬ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল রুশনুল ফিরোজ জানান- সোমবার দুপুরে যশোরের শার্সা থেকে হত্যা কান্ডের সাথে জড়িত মোঃ আশরাফ আলীকে আমরা আটক করি। তার বাড়ি মাগুরা সদর উপজেলার ৯ নং চাউলিয়া ইউনিয়নের মানিকগ্রামে। সে ঐ গ্রামের আহমেদ আলী বিশ্বাসের ছেলে। তার দেয়া তথ্যমতে আমরা
এ অভিযান পরিচালনা করি।

তিনি আরো জানান, জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কথা সে স্বীকার করেছে। মূলত তারই দেয়া তথ্যমতে আমরা চাউলিয়া ইউনিয়নের ঘোড়া নাস দক্ষিণ পাড়া মাসুদ বিক্সসের কাছে রাস্তার কালভাটে অভিযান পরিচালনা করি।

র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক আরো বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে আশরাফ আরো জানিয়েছে, হিজামা ও হোমিওপ্যাথি ঔশুধের ব্যবসা থেকে মাল্টিলেভেল মার্কেটিং (এমএলএম) ব্যবসার সাথে জড়িত আজিজুরে সঙ্গে তার পরিচয় হয়। পরে আজিজুর আশরাফের কাছ থেকে তিনটি প্যাকেটে মোট ২১ হাজার টাকার ঔশুধ নেন। এ বাবদে আশরাফকে ৩ হাজার টাকা বেশি দিতে হবে বলে তাদরে মধ্যে চুক্তি ছিলো। কিন্তু এ টাকার ৫০০ টাকা দেন আজিজুর। তাতেই এক পর্যায়ে আশরাফের সাথে আজিজুর তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এর এক পর্যায়ে আশরাফ আজিজুরের গালে সজোড়ে থাপ্পড় মারে।

এ ঘটনায় আজিজুর অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরে আশরাফ তার হোমিও প্যাথি দোকানে তাকে ছুরি দিয়ে ৬ টুকরো করে হত্যা করে।

র‌্যাব আরো জানায়, হত্যার এক পর্যায়ে তার লাশ গুম করার জন্য হত্যাকারী নানা ধরনের কৌশল অবলম্বন করেন। লাশের টুকরো ছোট ছোট ব্যাগে ভরে বিভিন্ন ভাড়া রিক্সায় ও ভ্যানে কাঁঠাল বোঝায় করা এমন বুঝিয়ে লাশ নিয়ে যায়। তার পরে তার সুবিধা মত বিভিন্ন স্থানে লাশের টুকরা ফেলে দেয়।

তবে খুনের বিষয়ে অন্যকেহ জড়িত আছে নাকি জানতে চাওয়া হলে র‌্যাব-৬ জানান, আশরাফ ৫ জুন শনিবার, দুপুরে তার নিজ হোমিওপ্যাথি চেম্বারে আজিজুরকে খুন করে। এ খুনের সাথে মোঃ আশরাফ আলী একাই জড়িত বলে জানান এ কর্মকর্তারা।