patrika71
ঢাকামঙ্গলবার - ১ নভেম্বর ২০২২
  1. অনুষ্ঠান
  2. অনুসন্ধানী
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আবহাওয়া
  7. ইসলাম
  8. কবিতা
  9. কৃষি
  10. ক্যাম্পাস
  11. খেলাধুলা
  12. জবস
  13. জাতীয়
  14. ট্যুরিজম
  15. প্রজন্ম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

একজন মানবিক সমাজসেবী শিশির আসাদ

নিজস্ব প্রতিনিধি
নভেম্বর ১, ২০২২ ২:৪৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখতেন মানুষের জন্য কিছু করার। ইচ্ছে ছিল নিজের সামর্থ্যের মধ্যে যা সম্ভব, তাই দিয়েই সমাজের অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াবেন। তবে শুধু স্বপ্ন দেখেই থেমে যাননি, সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য অবিরাম কাজ করেছেন এবং এখনও কাজ করে চলেছেন। বলছি,পঞ্চগড় জেলার বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব শিশির আসাদ এর কথা।

তিনি সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষগুলোর ভবিষ্যৎকে বানিয়েছেন নিজের স্বপ্ন। আর সেই অধরা স্বপ্নকে ছুঁয়ে দেখার বাসনা থেকেই সেবা করে যাচ্ছেন সারাদেশ ব্যাপী। বাংলাদেশের প্রান্তিক মানুষের জীবন মান উন্নয়নে শিশির আসাদ তৃণমুল পর্যায়ে সুবিধাবঞ্চিত মানুষ ও শিক্ষার্থীদের জীবনে আমুল পরিবর্তন এনেছে। মানবিক উন্নয়নের মাঝে রয়েছে, অসহায় নারী ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কল্যাণে কাজ করা, শিশুদের শিক্ষাদানের পাশাপাশি শিক্ষা সামগ্রী প্রদান, অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে শিশির আসাদ।

শিশির আসাদ সদ্য স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। তার নেতৃত্বে সারাদেশ ব্যাপী তরুণ যুবকদের উদ্বুদ্ধকরণ ও সমাজ উন্নয়নে কাজ করছে কিছু উদ্যোমী যুবক। করোনার শুরু থেকে এ পর্যন্ত প্রায় সহস্রাধিক পরিবারকে ‘’ খাদ্য ও অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়। সারাদেশে প্রায় ১০০০০ মাস্ক বিতরণ করেন তাঁরা। প্রাথমিক স্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে সারাদেশে দুইশটি পরিবারের মাঝে ফাষ্টএইড বক্স প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও প্রতিবন্ধীদের হুইল চেয়ার প্রদান, কর্মক্ষম মানুষের আয়ের পথ সৃষ্টি করেছেন জনাব শিশির আসাদ ও তার টিম।

পাশাপাশি বিভিন্ন এলাকায় অসহায় দরিদ্র পরিবারের মাঝে টিউবওয়েল প্রদান করেছেন। অদম্য মেধাবী শিশির আসাদ এর মাধ্যমে অনেক অসহায় গরিব মানুষগুলি আলোর পথে। আগামী দিনে শিশির আসাদ সারাদেশ ব্যাপী অসহায় গরীব শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রি শিক্ষাদানের লক্ষ্যে টিউটর হোম স্থাপন করতে চান৷ তিনি বলেন যারা টাকার অভাবে প্রাইভেট কোচিং করতে পারেনা তাদের জন্য মুলত টিউটর হোম কাজ করবে। এটা অনলাইন ও অফলাইন দুইভাবেই সেবা দিবে।

তিনি আরো বলেন , যখন কাউকে সহযোগিতা করতে পারি -যেমন অসহায় রোগীর চিকিৎসা, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা, শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা, কারও অর্থের ব্যবস্থা করা এমন সব কাজগুলো করতে পারলে মনের ভেতরে একটা ভালো লাগা কাজ করে। এই অনুভূতি আসলে কাউকে বোঝানোর মতো নয়। তখন আমার কাছে মনে হয় এটিই আমার জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন, বড় সাফল্য। একটা মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে পারলে মনে হয় আমি পুরো বিশ্বকে জয় করে ফেলেছি।

তবে খ্যাতি কিংবা নামের জন্য নয়, একমাত্র মানুষের জন্য কিছু করার প্রয়াস থেকেই এই কাজগুলো করে আসছি। ভবিষ্যতেও করে যেতে চাই যতদিন আল্লাহ বাঁচিয়ে রাখেন।

অসহায় মানুষদের স্বপ্ন পূরণের জন্য কাজে করে যাচ্ছেন শিশির আসাদ। তাঁর এই উদ্যোগে উপকৃত হচ্ছে সমাজের অসংখ্য মানুষ। শিশির আসাদ তাঁর এই উদ্যোগের মাধ্যমে সমাজে একটি ইতিবাচক পরিবর্তনের ধারা আনতে চান।

পত্রিকা একাত্তর / সাদিয়া রাহমান