পুলিশকে তথ্য দেয়ায় উল্টো সাংবাদিক কে হয়রানি

বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে বরগুনার আমতলী পৌর ০৪নং ওয়ার্ডের পশ্চিম মাথায় চাল ব্যবসায়ী সোবাহান মোল্লার চালের দোকানের ক্যাশ কাউন্টার ভেঙ্গে ২ লক্ষ টাকা চুরির ঘটনায় সিসিটিভির ফুটেজ দেখে সন্দেহজনক ভাবে রাজ্জাক (২২) নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে আহত করেছিল ক্ষুদ্ধ স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

এ সময় তার ভিডিও ধারন করে তা ফেইজবুকে ছড়িয়ে দিলে তা ব্যাপক ভাইরাল হয়। কিশোরকে মারধরের সময় বাধা দিয়ে আমতলী থানায় খবর দেন আমতলী উপজেলা’র বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি মনিরুল ইসলাম।

তিনি বিচারবহির্ভূত এই মারধরে ঘটনা পুলিশকে অবহিত করে কিশোরকে প্রানে রক্ষা করেন।
সাংবাদিক মনিরুল ইসলাম জানান, পুলিশকে খবর দেয়ার কারনে স্থানীয় চাল ব্যবসায়ী ঘোটন কুন্ড তাতে ক্ষুদ্ধ হয়ে আমার উপর চড়াও হয়ে গালমন্দ করেন এবং তার ছেলেরা আমাকে লাঞ্চিত করেন।

তিনি আরও বলেন আমি এ ঘটনা তৎক্ষনাৎ আমতলীর থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম মিজানুর রহমান কে জানাই তিনি এস আই সিদ্দিকুর রহমান কে ঘটনাস্থলে পাঠান।

পুলিশ অফিসারের সামনেই পূনরায় আমাকে ব্যবসায়ী ঘোটন কুন্ড পুলিশকে তথ্য দেয়ায় হুমকি দেয়, যা ঐস্থানে থাকা সিসিটিভি ফুটেজ দেখলে সত্যতা মিলবে বলে যোগ করেন।

এ বিষয়ে সাংবাদিক ফোরামের পক্ষ থেকে নিন্দা জানানো হয়েছে। সন্দেহের ভিত্তিতে কিশোরকে পিটিয়ে আহত করার পিছনে যারা জড়িত তাদের ও শাস্তি দাবি করা হয় সাংবাদিক ফোরামের পক্ষ থেকে।

রাজ্জাকের বড় ভাই আলম ইসলাম জানান আমি অভিযোগ লিখে রাখছি, ভিডিওতে যাদের দেখা গেছে তাদের বিরুদ্ধেই অভিযোগ করবো।

সোসাল মিডিয়ায় সাংবাদিক মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশের ব্যাপারে আজ রাত সাড়ে আটটায় অফিসার ইনচার্জ কে এম মিজানুর রহমানের কক্ষে সাংবাদিক প্রতিনিধিদল গেলে তিনি সাংবাদিকদের আশ্বাস দেন সাংবাদিকদের কোন ভাবে হয়রানি করা হবে না এবং এব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পত্রিকাএকাত্তর / মনিরুল ইসলাম

সম্পর্কিত নিউজ

Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ নিউজ