patrika71
ঢাকাশনিবার - ১০ ডিসেম্বর ২০২২
  1. অনুষ্ঠান
  2. অনুসন্ধানী
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আবহাওয়া
  7. ইসলাম
  8. কবিতা
  9. কৃষি
  10. ক্যাম্পাস
  11. খেলাধুলা
  12. জবস
  13. জাতীয়
  14. ট্যুরিজম
  15. প্রজন্ম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটির মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে সভা ও ঔষধ বিতরণ

নিজস্ব প্রতিনিধি
ডিসেম্বর ১০, ২০২২ ৫:০১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ফেনীতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা, হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটির কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ও বাংলাদেশের বিশিষ্ট গবেষক ডা.মুহাম্মাদ মাহতাব হোসাইন মাজেদ’র ব্যাক্তিগত কার্যালয়ে শনিবার সকালে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস ও হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটির ৩১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

মর্যাদা, স্বাধীনতা ও ন্যায় বিচার সবার জন্য’ এই প্রতিপাদ্য সামনে নিয়ে এক আলোচনা সভা ও বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ কর্মসূচি কেন্দ্রীয় পরিচালক সাইফুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় রোগী কল্যাণ সোসাইটির কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা, ডা.শাহাদাত হোসাইন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিতি ছিলেন, জামেয়া ইসলামিয়া সোলতানিয়ার মুহাদ্দিস মুফতি ওমর ফারুক নিজামী,রোগী কল্যাণ সোসাইটির ফেনীর সদর সদস্য সচিব মুহাম্মাদ রফিকুল ইসলাম ভূঞা, নোয়াখালী জেলা শাখার সদস্য সচিব, আবদুল মান্নান, চট্টগ্রাম জেলা শাখার সদস্য সচিব এডভোকে হায়দার আলী
সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটির কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ডা.এম এম মাজেদ তার বক্তব্যে বলেন,জন্মস্থান, জাতি, ধর্ম, বর্ণ, বিশ্বাস, অর্থনৈতিক অবস্থা কিংবা শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্বিশেষে মানবাধিকার সর্বজনীন ও সবার জন্য সমান। প্রতিটি মানুষ জন্মগতভাবেই এসব অধিকার লাভ করে।আর মানব যখন মানবিক হয় তখনই মানবতা প্রতিষ্ঠা পেয়ে থাকে। সুতরাং আজকের যে মানবাধিকারের বিষয়বস্তু সেখানে সকল প্রকার বৈষম্যকে ঘুচিয়ে দিতে বলা হয়েছে।

আমরা দেখেছি যে নারীর প্রতি বৈষম্য হয়, শিশুদের প্রতি বৈষম্য হয়,অসহায় মানুষের প্রতি বৈষম্য হয়, এই যে বৈষম্য গুলো হচ্ছে সেটার সঠিক কারণ যদি আমরা উদঘাটন করতে পারি তাহলে বৈষম্য মুক্ত পৃথিবী আমরা গঠন করতে পারবো।আর ১৯৪৫ সালের ২৪ অক্টোবর জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠার পর মানবাধিকার রক্ষার জন্য ইউডিএইচআর অর্থাৎ ইউনিভার্সাল ডিক্লারেশন অফ হিউম্যান রাইটস যখন জাতিসংঘে পাশ হয় তখন কেউই এটার বিপক্ষে ছিলোনা তারমানে হলো পৃথিবীর সকল মানুষ চায় যে মানবাধিকার থাকবে এবং সবাই সবার মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকবে। কিন্তু আজও পৃথিবীব্যাপী প্রতিনিয়ত মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে এবং মানবতা ভূলুণ্ঠিত হচ্ছে।আমরা চাই বিশ্বব্যাপী মানবাধিকার প্রতিষ্ঠিত হোক এবং মানুষ মানুষের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধাশীল হোক।

উল্লেখ্য, ১৯৪৮ সালের ১০ ডিসেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে মানবাধিকারের সর্বজনীন ঘোষণাপত্র গৃহীত হয়। ১৯৫০ সালে এই দিনটিকে জাতিসংঘ বিশ্ব মানবাধিকার দিবস হিসেবে ঘোষণা দেয়।দিবসটি উপলক্ষে সকালে জাতীয় রোগী কল্যাণ সোসাইটির পক্ষ থেকে বিনা মূল্যে ঔষধ বিতরণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

পত্রিকা একাত্তর/ মাজিদ