patrika71 Logo
ঢাকামঙ্গলবার , ১৭ আগস্ট ২০২১
  1. অনুষ্ঠান
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. আবহাওয়া
  8. ইভেন্ট
  9. ইসলাম
  10. কবিতা
  11. করোনাভাইরাস
  12. কৃষি
  13. খেলাধুলা
  14. চাকরী
  15. জাতীয়
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অধ্যক্ষকে জুতাপেটা করলেন অফিস সহকারী

পত্রিকা একাত্তর ডেস্ক
আগস্ট ১৭, ২০২১ ৯:৪০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ad

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার সাফা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বিনয় কৃষ্ণ বলকে অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন জুতাপেটা করেছেন। এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

গতকাল সোমবার (১৬ আগস্ট) সকালে অফিস চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন ধানিসাফা এলাকার আলম বেপারীর স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সাফা ডিগ্রি কলেজের অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন কলেজের কোনো নিয়ম-কানুন মানেন না। এমনকি জাতীয় শোক দিবসেও কলেজে আসেননি তিনি। স্থানীয় ও প্রভাবশালী হওয়ায় ফরিদা ইয়াসমিন প্রায়ই অধ্যক্ষের কথা অমান্য করে চলেন।

এ ব্যাপার কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বিনয় কৃষ্ণ বল জানান, সোমবার তিনি কলেজের শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট সংক্রান্ত কাজে কলেজে আসার জন্য বলেন। শিক্ষার্থীরা ওই দিন যথারীতি অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে আসে। তিনি অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিনকে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেওয়া শিক্ষার্থীদের নাম রেজিস্ট্রার খাতায় লিখে রাখতে বলেন। তবে ফরিদা ইয়াসমিন এতে কোনো কর্ণপাত করেননি।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বলেন, আমি রেজিস্ট্রার খাতা নিয়ে অফিস সহকারীর টেবিলে গেলে ১০/১২ জন শিক্ষার্থী ও স্টাফদের উপস্থিতিতে অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন হঠাৎ করেই পায়ের জুতা খুলে আমাকে পেটানো শুরু করে। পরে শিক্ষার্থীরা আমাকে উদ্ধার করে। বর্তমানে আমি মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছি। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সারা দেশ থেকে আরো খবর পড়ুন!

সাফা ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী নুরুন্নাহার বলেন, অধ্যক্ষ স্যার অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেওয়া শিক্ষার্থীদের নাম রেজিস্ট্রার খাতায় এন্ট্রি করতে বলেন। কিন্তু অফিস সহকারী ম্যাম এতে অপরাগতা প্রকাশ করে হঠাৎ কিছু বুঝে ওঠার আগেই পায়ের জুতা খুলে স্যারকে পেটানো শুরু করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বশির আহমেদ জানান, এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য আমরা মর্মাহত। ভুক্তভোগী অধ্যক্ষ আইনের আশ্রয় নিলে আমরা তাকে সার্বিক সহযোগিতা করব।

অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন-

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ইদ্রিস আলী আজিজি বলেন, এ ধরনের ঘটনা শিক্ষা ব্যবস্থার জন্য অনাকাঙ্ক্ষিত এবং হুমকিস্বরূপ। আমি এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে প্রশাসনিকভাবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতির মঠবাড়িয়া উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও মঠবাড়িয়া মহিউদ্দিন আহমেদ মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আজিম উল হক জানান, ঘটনাটি জঘন্যতম অপরাধ। শিক্ষক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহা. নুরুল ইসলাম বাদল জানান, আমরা বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। এ ব্যাপারে থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সূত্র: ঢাকা পোস্ট।

ad