patrika71 Logo
ঢাকাশনিবার , ১৪ আগস্ট ২০২১
  1. অনুষ্ঠান
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. আবহাওয়া
  8. ইভেন্ট
  9. ইসলাম
  10. কবিতা
  11. করোনাভাইরাস
  12. কৃষি
  13. খেলাধুলা
  14. চাকরী
  15. জাতীয়
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিএনপি নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

পত্রিকা একাত্তর ডেস্ক
আগস্ট ১৪, ২০২১ ৫:৪৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ad

নোয়াখালী সদর উপজেলার আন্ডারচর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন মোল্লাকে (৫২) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে ২ জনকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নোয়াখালী পুলিশ সুপার শহিদুল ইসলাম।

আটককৃতরা হলেন সদর উপজেলার আন্ডাচর ইউনিয়নের পূব মাইজচারা গ্রামের আলি আহমেদের ছেলে সোহাগ (২৪) ও একই গ্রামের নুর মোহাম্মদের ছেলে মিলন হোসেন (২৬)।

নিহত হারুনুর রশীদ মোল্লা উপজেলার আন্ডারচর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। শুক্রবার (১৩ আগস্ট) রাত পৌনে ৮টার দিকে আন্ডারচর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের পশ্চিম মাইজচরা গ্রামে নিজ বাড়ির সামনে তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এ সময় হারুন মোল্লার ভাতিজা রমিজসহ (২২) আরও চারজন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে রমিজের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের ভাই আমিনুল হক অভিযোগ করে জানান, গত কয়েক দিন আগে নিহতের ছেলে সজিবের সাথে ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় কয়েকজন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীর সাথে বাকবিতণ্ডা হয়। এ তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে ১৫-২০ জনের সংঘবদ্ধ অস্ত্রধারীরা শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে স্থানীয় চৌকিদার বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে সজিবকে হত্যার উদ্দেশ্যে খুঁজতে থাকে। সজিবের বাবা বিএনপি নেতা হারুনুর রশীদ মোল্লা এ খবর পেয়ে ছেলেকে বাঁচানের জন্য মোটরসাইকেল নিয়ে রাত ৮টার দিকে স্থানীয় চৌকিদার বাজারের উদ্দেশে রওনা দেন।

যাত্রাপথে তিনি স্থানীয় তালতলা নামক স্থানে পৌঁছলে অস্ত্রধারীদের মুখোমুখি পড়ে যান। এ সময় অস্ত্রধারী রিয়াদ, নাফিস, ইউসুফসহ ১৫-২০ জন সন্ত্রাসী তাকে গুলি করে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে। তবে তার আরেক ভাই ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে প্রাণে রক্ষা পায়। এরপর স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বিএনপি নেতা মোল্লাকে মৃত ঘোষণা করে। মারাত্মক আহত অবস্থায় তার ভাতিজা রমিজ নোয়াখালী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

উল্লেখ্য, নিহত হারুনুর রশীদ মোল্লা ২০১১ সালে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে আন্ডারচর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ছিলেন এবং ২০১৬ সালে তিনি ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেন।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম বলেন, হারুনুর রশিদকে নিহত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। ওই ঘটনায় আরও দুইজন আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সুধারাম মডেল ওসি মো: সাহেদ উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বিষয়টি পুলিশ খতিয়ে দেখছে। পরে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

আবু সাঈদ শাকিল: নোয়াখালী প্রতিনিধি।

ad