patrika71 Logo
ঢাকাশুক্রবার , ১৮ জুন ২০২১
  1. অনুষ্ঠান
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. কবিতা
  10. করোনাভাইরাস
  11. কৃষি
  12. খেলাধুলা
  13. চাকরী
  14. জাতীয়
  15. টেকনোলজি
আজকের সর্বশেষ সবখবর

১৪৪ ধারা অমান্য করেও জায়গা দখল

পত্রিকা একাত্তর ডেক্স
জুন ১৮, ২০২১ ৮:০২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে ১৪৪ ধারা অমান্য করে জোরপূর্বক দুই হিন্দু পরিবারের জায়গা দখল করে একটি ঘর নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) বিকালে কুলিয়ারচর উপজেলা ছয়সূতী ইউনিয়নের শ্যামাইকান্দি গ্রামে দীপংকর চন্দ্র ঘোষ (৩২) ও চন্দন চন্দ্র ঘোষ (২৬) এর দখলীয় ভূমিতে ১৪৪ ধারা অমান্য করে অবৈধ ভাবে ঘর নির্মাণের ঘটনাটি ঘটে।

শ্যামাইকান্দি গ্রামের দিলীপ চন্দ্র ঘোষের ছেলে দীপংকর চন্দ্র ঘোষ ও জাহার লাল চন্দ্র ঘোষের ছেলে চন্দন চন্দ্র ঘোষ অভিযোগ করে বলেন, তাদের পার্শ্ববর্তী বাড়ির মৃত হানিফ মিয়ার পুত্র ছিদ্দিক মিয়া (৫০) গং বেশ কিছুদিন যাবত তাদের জায়গা জোরজবর দখল করার পায়তারাসহ বিভিন্ন প্রকার হুমকি প্রদর্শন করে আসছিল। এঘটনায় এলাকায় এ পর্যন্ত ১০টি শালিস দরবার হয়েছে। সর্বশেষ গত ১৩ জুন রোববার একটি শালিসের আয়োজন করে তারা। শালিসে তাদের পক্ষে রায় দেওয়ার পর প্রতিপক্ষ ক্ষিপ্ত হয়ে শালিসের রায় অমান্য করে পরদিন গত ১৪ জুন সোমবার সকালে ছিদ্দিক মিয়া দলবল নিয়ে দীপংকর চন্দ্র ঘোষ ও চন্দন চন্দ্র ঘোষের জায়গা থেকে প্রায় ৫০টি মেহগনি গাছের চারা তুলে নিয়ে একটি এক চালা ঘর নির্মাণ করে এবং জায়গার দুই পার্শ্বে বাঁশ ও সিমেন্টের খুঁটি পুতে বেড়া দিয়ে দেয়।

বাঁধা নিষেধ দিলে ছিদ্দিক মিয়া ও তার লোকজন ওই হিন্দু পরিবারকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদর্শন করে। এ ঘটনায় দীপংকর চন্দ্র ঘোষ বাদী হয়ে ওই দিন ১৪ জুন সোমবার দুপুরে কুলিয়ারচর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করে। অভিযোগ করার পর দিন ১৫ জুন মঙ্গলবার কুলিয়ারচর থানার এসআই মোঃ নয়ন মিয়া ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে প্রতিপক্ষকে বুঝিয়ে অবৈধ ভাবে তৈরিকৃত ঘর ও বেড়া অপসারণ করার ব্যবস্থা করেন।

পুলিশ ঘটনাস্থল ত্যাগ করার পর প্রতিপক্ষ হিন্দু দুই পরিবারকে পূনরায় বিভিন্ন প্রকার হুমকি প্রদর্শন করায় গত ১৬ জুন বুধবার চন্দন চন্দ্র ঘোষ ও দীপংকর চন্দ্র ঘোষ বাদী হয়ে কিশোরগঞ্জে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৪৪ ধারায় সিদ্দিক মিয়াকে প্রধান আসামী করে ৬ জনের বিরুদ্ধে পৃথকভাবে দুইটি মামলা দায়ের করে। সি.আর মোকদ্দমা নং – ৮৩৮/২০২১ ও ৮৩৯/২০২১। এছাড়া চন্দন চন্দ্র ঘোষ বাদী হয়ে ওই দিন কিশোরগঞ্জ জেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত নং-১ এ ফৌঃ কাঃ বিঃ ১০৭/১১৪/১১৭ (সি) ধারায় সিদ্দিক মিয়াকে প্রধান আসামী করে ৭ জনের বিরুদ্ধে অপর আরো একটি মামলা দায়ের করেন।

১৪৪ ধারায় দুইটি মামলা রুজু হওয়ার পরদিন গত ১৭ জুন বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশ মোতাবেক শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য বাদীদ্বয়ের নালিশী ভূমি অর্থাৎ চন্দন চন্দ্র ঘোষের শ্যামাইকান্দি মৌজার খতিয়ান নং- এসএ- ৪৮/ আরএস- ১০৮, দাগ নং- এসএ- ৯৬/ আরএস-৪৯৭, শ্রেণি- কান্দা, জমির পরিমাণ- ১৭.৭৫ শতাংশ এবং খতিয়ান নং- এসএ- ৩৫ / আরএস- ১২৮, দাগ নং- এসএ- ৯৭/ আরএস- ৫০১, শ্রেণি- কান্দা, জমির পরিমাণ- ৪.২৫, মোট ২২ শতাংশ ভূমি ও দীপংকর চন্দ্র ঘোষের শ্যামাইকান্দি মৌজার খতিয়ান নং- এসএ- ৩৫ / আরএস- ১৩৬, দাগ নং- এসএ- ৯৭/ আরএস- ৫০২, শ্রেণি- কান্দা, জমির পরিমাণ- ৮.৭৫ শতাংশ ভূমি নিয়ে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার লক্ষে ১৪৪ ধারা মতে পক্ষগনকে নোটিশ প্রধান করেন কুলিয়ারচর থানার এএসআই মোঃ সাকিনুল ইসলাম।

নোটিশ জারি করার পরপরই সিদ্দিক মিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে ১৪৪ ধারা অমান্য করে নালিশী ভূমিতে জোরপূর্বক আবারও একটি ঘর নির্মাণ করে। বাঁধা নিষেধ দিলে সিদ্দিক মিয়া সহ তার লোকজন দা, শাবল ও লাঠি নিয়ে হিন্দু পরিবারের সদস্যদের খুন জখম করতে আসে।

চন্দন চন্দ্র ঘোষ ও দীপংকর চন্দ্র ঘোষ এ প্রতিনিধিকে বলেন, আমরা হিন্দু (সনাতন) ও সংখ্যালঘু বলে প্রতিপক্ষ আমাদের উপর জোর জুলুম করে আসছে। আমাদের জায়গা জোরজবর দখল করে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশকৃত ১৪৪ ধারা অমান্য করে ঘর নির্মাণ করেছে। এ ঘটনায় তাদের পক্ষে কেউ এগিয়ে না আসায় তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপি’র নিকট জুলুমকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও জায়গাটি দখল মুক্ত করার দাবী জানান।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ছিদ্দিক মিয়া (৫০) এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তাদের জায়গায় তারা ঘর উঠিয়েছে।