patrika71 Logo
ঢাকাশুক্রবার , ১৩ আগস্ট ২০২১
  1. অনুষ্ঠান
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. আবহাওয়া
  8. ইভেন্ট
  9. ইসলাম
  10. কবিতা
  11. করোনাভাইরাস
  12. কৃষি
  13. খেলাধুলা
  14. চাকরী
  15. জাতীয়
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সাপাহারে আগাম আম বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ত চাষীরা

পত্রিকা একাত্তর ডেস্ক
আগস্ট ১৩, ২০২১ ১১:০৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ad

বাগানের আম শেষ হতে না হতেই নওগাঁর সাপাহারে আগামী বছরের বাম্পার ফলনের প্রত্যাশায় বাগান মালিকগণ এখন থেকেই বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।

আমের জেলা হিসাবে নওগাঁ জেলা পরিচিত লাভ করেছে ইতোমধ্যে। জেলার অন্যতম প্রধান অর্থকরী ফসল এখন এই আম। আম থেকে যাঁরা মোটা টাকা আয় করতে ইচ্ছুক তাঁরা আবহাওয়ার উপর ভরসা না রেখে এখনই আমবাগানের যত্ন নেওয়া শুরু করে দিয়েছে। বাংলার উৎপাদিত আমের অধিকাংশই নওগাঁ জেলা থেকে উৎপাদন হয়। সঠিক পরিচর্যা, রোগ সংক্রমণ ও পোকামাকড়ের আক্রমণ দমন করতে পারলে ভাল ফলন মিলবে। আম গাছের ফলধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং ফলন বাড়ানোর জন্য তাই এখন থেকেই ঠিকমতো পরিচর্চা করা প্রয়োজন।

সাপাহার উপজেলার আমচাষি সোহেল রানা জানান, এখনও তার ৫ বিঘা জমিতে বারি-৪জাতের আম রয়েছে। বর্তমানে ৫ হাজার থেকে ৬ হাজার টাকা মণ দরে এ আম বিক্রি হচ্ছে। তার পরেও যে সব বাগানে আম ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে- আগামী বছরে অধিক ফলনের আশায় এখন থেকেই প্রতিটি গাছের গোড়ায় রাসায়নিক সার প্রয়োগ করা হচ্ছে। এছাড়া বাগানে প্রচুর পরিমাণে আলো-বাতাস প্রবেশের জন্য গাছের অপ্রয়োজনীয় ডালপালা কেটে ফেলা হচ্ছে। আরেক আম বাগান মালিক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য আব্দুস সাত্তার জানান যে, শীত পড়লে সাধারণত গাছপালা প্রচুর দীর্ঘ সময় খাদ্যগ্রহণ হতে বিরত থাকে।

এছাড়া প্রচন্ড শীতে গাছের নতুন ডালপালা জম্মায় না তাই গরমকাল থাকতেই প্রতিটি বাগানে গাছের খাদ্য হিসেবে সার প্রয়োগ করতে হয়। এজন্য উপজেলার প্রতিটি বাগান মালিকগণ এখন থেকেই বাগান পরিচর্যায় নেমে পড়েছেন। সাপাহারে বাগান পরিচর্যার কারণে উপজেলার প্রতিটি সার ও কীটনাশক দোকানগুলোতে রাসায়নিক সার বিক্রয় হচ্ছে চোখে পড়ার মতো।

সার ও কীটনাশক ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, অতীতে ধানের আবাদে যে পরিমাণ সার ও কীটনাশক বিক্রি হতো আম চাষের ফলে এখন প্রতিবছর কয়েকগুন বেশি সার ও কীটনাশক বিক্রি হয়ে থাকে। আম চাষাবাদের ফলে নওগাঁ জেলায় যেমন অর্থনৈতিক উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে তেমনি জেলার প্রতিটি সেক্টরেই এর প্রভাব পড়েছে।

সাপাহার উপজেলা ও নওগাঁ জেলার কৃষি দপ্তরের মতে এবারে সাপাহার উপজেলাতে প্রায় ৮হাজার হেক্টর জমিতে আমের চাষাবাদ হয়েছে। প্রতি বছর নতুন নতুন বাগান সৃজনের ফলে এর পরিধি বর্ধনশীল প্রক্রিয়ায় রয়েছে বলে জানা যায়।

তোফায়েল আহমেদ: সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি।

ad